মঙ্গলবার, ০৯ এপ্রিল ২০২৪, ২৬ চৈত্র ১৪৩০, ২৯ রমজান ১৪৪৫ হিজরী

সারা বাংলার খবর

সীতাকুণ্ডে পুলিশ পরিচয়ে অপহরণের চেষ্টাকালে প্রতারক গ্রেফতার

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ৮:১৫ পিএম

সীতাকুণ্ড উপজেলার ভাটিয়ারী এলাকায় পুলিশ পরিচয়ে এক যুবককে হ্যান্ডকাপ লাগিয়ে অপহরণের চেষ্টাকালে এলাকাবাসি এক প্রতারকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে। প্রতারকের নাম আবদুল করিম। সে বগুড়া জেলার বাসিন্দা বলে জানা গেছে।( ৭ জানুয়ারি) মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশ তাকে কোর্ট হাজতে প্রেরণ করেছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আবদুল করিম নামক এক প্রতারক কিছুদিন ধরে একটি ওয়াকিটকি ও হ্যান্ডকাপ নিয়ে যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগের কথা বলে একটি গাড়িতে তুলে নিচ্ছিলেন। পরে গাড়িতে তাদের জিম্মি করে ঘুষ আদায় করে ছেড়ে দিতেন। ঠিক একই রকম সম্প্রতি কয়েকটি অভিযোগ আসে ভাটিয়ারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিনের কাছে। এবিষয়ে তিনি পুলিশের সাথে কথা বলে জানতে পারেন ঐসব ঘটনার সময় কোন পুলিশ সেখানে দায়িত্ব পালন করেনি।
প্রতারনার বিষয়ে নিশ্চিত হয়ে তিনি এলাকাবাসীকে বিষয়টি নিয়ে সতর্ক করেন।
এদিকে সোমবার রাতে ঐ প্রতারক আবারো ভাটিয়ারী এলাকায় এসে স্থানীয় আরেক যুবককে আটক করে হাতে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে গাড়িতে তুলতে চেষ্টা করে। এসময় স্থানীয়রা তাকে বাধা দিয়ে ইউপি চেয়ারম্যানকে জানালে তিনি ঘটনাস্থলে এসে থানায় যোগাযোগ করলে পুলিশ তাকে আটক করার পরামর্শ দেয়। পরে থানা থেকে পুলিশ সেখানে গিয়ে আব্দুল করিমকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায়। করিম বগুড়ার মহিষবাতান গ্রামের রাজা মিয়ার ছেলে।
ভাটিয়ারীর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নাজিম উদ্দিন বলেন, প্রতারক আবদুল করিম গত কয়েকদিন ধরে এলাকায় বিভিন্ন যুবককে ডিবি পরিচয়ে আটক করে তাকে গাড়িতে তুলে মারধর করে এবং ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা আদায় করে। ঘটনাটি জানার পর আমি থানায় যোগাযোগ করে নিশ্চিত হই যে ও আসলে একজন প্রতারক। এতে সতর্ক হই আমরা। সোমবার রাতেও একইভাবে এক যুবককে আটক করে সেখানে নিয়ে যেতে চেষ্টা করলে এলাকাবাসী আমাকে জানায়। আমি এসে পুলিশের সাথে যোগাযোগ করে প্রতারণার বিষয়টি নিশ্চিত হলে পরে পুলিশ এসে তাকে গ্রেপ্তার করে। সীতাকুণ্ড থানার ওসি তোফায়েল আহমেদ বলেন, প্রতারক আবদুল করিমের প্রথম টার্গেট ছিলো মাদক ব্যবসায়ীরা। সে নিজেকে কখনো ডিবি, কখনো এনএসআই কর্মকর্তা ইত্যাদি পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন জনের সাথে প্রতারণা করত। সে প্রাথমিকভাবে নিজের অপরাধ কথা আমাদের কাছে স্বীকার করেছে।সে বলেছে গত ১৫ দিন ধরে এসব করে আসছে। আর প্রতারণার মাধ্যমে ২০ হাজার টাকা আদায় করেছে। যদিও আমাদের মনে হয় সব মিথ্যা বলছে সে। আমরা আজ মঙ্গলবার দুপুরে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার পর কোর্ট হাজতে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন