সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ১০ মাঘ ১৪২৮, ২০ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ২০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে তীব্র যানজট

সোনারগাঁ উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৬ মে, ২০১৮, ১:০১ পিএম

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের মেঘনা সেতুর টোল প্লাজা এলাকা থেকে সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল পর্যন্ত দীর্ঘ ২০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়। মঙ্গলবার রাত থেকে এ সৃষ্ট যানজটের ফলে যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। মেঘনা ও দাউদকান্দি সেতুর টোল প্লাজায় টোল আদায় ধীর গতি, ওজন স্কেলের অব্যবস্থাপনা, ট্রাফিক পুলিশের সংখ্যা অপর্যাপ্ত ও ট্রাফিক আইন অমান্য করে উল্টো পথে যানবাহন চলাচল ও মহাসড়কে সংস্কার কাজ চলার কারণে এ যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে ।
সরেজমিনে বুধবার দুপুরে মোগড়াপাড়া চৌরাস্তা এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, ভোর রাত থেকে মহাসড়কের মেঘনা সেতু ও কাঁচপুর সেতু এলাকায় এ যানজট। প্রায় ২০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে আটকা পড়ে থাকে যাত্রীবাহী ও মালবাহী যানবাহন। প্রতিটি যানবাহনের চাকা চলছে ধীর গতিতে। মেঘনা সেতু থেকে কাঁচপুর সেতুর পশ্চিম প্রান্ত সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড পর্যন্ত গাড়ি চলছে ধীরগতিতে।।
কুমিল্লাগামী গাড়ির কয়েক জন চালক জানান, ঢাকার সায়েদাবাদ থেকে সকালে ছেড়ে এসে মোগরাপাড়া চৌরাস্তা পর্যন্ত আসতে ৫ ঘণ্টা সময় লেগেছে। যানজট না থাকলে মেঘনা সেতু এলাকা আসতে সর্ব্বোচ ৪০ মিনিট সময় লাগত।
বিভিন্ন পরিবহনের চালক ও পুলিশের সঙ্গে কথা বলে যানজটের কারণ অনুসন্ধান করে জানা যায়, মূলত মেঘনা ও দাউদকান্দি সেতুর টোল প্লাজায় টোল আদায়ে ধীর গতি, ওজন স্কেলের অব্যবস্থাপনা, ট্রাফিক পুলিশের সংখ্যা কম ও ট্রাফিক আইন অমান্য করে উল্টো পথে যানবাহন চলাচল ও মহাসড়কে সংস্কার কাজ চলার কারণে এ যানজট।
মেঘনা সেতুর টোল প্লাজার ওজন স্কেলে গিয়ে দেখা যায়, ধীর গতিতে পরিবহনের ওজন পরিমাপ করা হচ্ছে। শতশত ট্রাক লরি মহাসড়কের উপর সারিবদ্ধভাবে দাড়িয়ে আছে।
কাঁচপুর হাইওয়ে থানার ওসি কাইয়ুম আলী সরদার জানান, মহাসড়কে সংস্কার কাজ চলছে এবং গাড়ীর চাপ বেড়ে যাওয়ায় মহাসড়কে যানজট সৃষ্টি হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যানজট নিয়ন্ত্রণে কাজ করে যাচ্ছে।
সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাহীনুর ইসলাম জানান, মহাসড়কে দীর্ঘ যানজটে মানুষের দুর্ভোগের বিষয়টি প্রশাসনকে ভাবিয়ে তুলেছে। মহাসড়কের যানজট নিয়ন্ত্রণে পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন