ঢাকা, রোববার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

সাহিত্য

এ সপ্তাহের কবিতা

| প্রকাশের সময় : ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:২১ এএম

মিজানুর রহমান তোতা
মাটির বোবা কান্না

আমি কী শুধু দিতেই জন্মেছি এর উত্তর নেই
পৃথিবীর সৃষ্টি থেকে দিয়েই যাচ্ছি আর যাচ্ছি
সবাই আমাকে নির্বিচারে ব্যবহার করে চলেছে
আমি অমূল্য সম্পদ মাটি।
দ্রুত বদলে যাচ্ছে মাটি যত্নবানের দৃষ্টি নেই
সৃষ্টিতে মাটি জীবনে মাটি মরণেও মাটি
তবুও সেই মাটির প্রতি অবহেলা তাচ্ছিল্য
মাটি কাঁদছে করছে আহাজারি।
মাটির সোদা গন্ধ কৃষকের হৃদয়মন আঁকড়ে
সারাক্ষণ মাটিতে বীজ ফেললেই জন্মাচ্ছে
ফসল গাছাপালা ফলমূল বেঁচে থাকার সম্বল
মাটির ্ঋণ হবে না শোধ।
মাটি আহার যোগাচ্ছে তুলছি তৃপ্তির ঢেকুর
খাচ্ছি আর খাচ্ছি খেয়েই চলেছি অবিরত
প্রতিমুহূর্তে মাটিতে আঘাতের পর আঘাত
নীরবে সহ্য করছে মাটি।
মাটির বোবা কান্না যাচ্ছে না কারো কানে
মাটি বলছে আমি নিঃশেষ হয়ে গেলাম
শুধুই যন্ত্রণাকাতর তবু টলছে না হৃদয়
পড়ছে না আচড়।
রাসায়নিক সার ও কীটনাশক দিয়ে আমাকে
করা হচ্ছে হত্যা ৭০ ভাগ মাটিতে ঘাটতি
ফসফরাস পটাশিয়াম গন্ধক দস্তা বোরণ
নাইট্রোজেন উপাদান নেই।
মাটিতে জৈব পদার্থের গড় পরিমাণ নামছে
বাঁচান বাঁচান মাটিকে বাঁচাতে হবে দৃঢ়পণে
মহা দুর্গতি নেমে আসবে কাঁদাতে গিয়ে
হবে জনমভর কাঁদতে।

আমার পরিচয়
টিপু সুলতান

যে দিন কবিতার সঙে আমার পরিচয়
তার সকল কিছু পেন্সিলে আঁকলাম
কাঁচা সবুজ বন,হলুদ পাতার শাড়ি
উর্বর মাঠ-ভাত কাপড় ছাউনি ঘর
দাম্পত্যে হাঁটাচলা উঠান থেকে পুকুর ঘাট
এভাবে-বারংবার তাকে চুরি করি
যতবার সে পালায়,পালাতে চায়
একপাল শুভ্র হাসঁ,পরিযায়ীর মতো
তার সৌন্দর্য,তার কাজুবাদাম গুণ
উর্বর দেহ সমতল-এ্যাশট্রে শিল্প গন্ধ
আলমারি হতে শো-কেস সাজাই
আমি এক দাঁড়ানো পৃথিবীর চতুর্পাশে
ধূসরে মুড়ো গাছ বেদুইনে তেত্রিশতম

তামিম চৌধুরী
কুপ-পক্ষী

তোমার বাড়ির আঙিনায়
মইদ্ধ নিশিতে
কুপ-পক্ষি হইয়া কে অমন ডাকে
কে অমন জারুলগাছে বইয়া
পিটপিট ফেলে চোখের পানি
যদি তা জানিতে,
তুমি যদি বুঝিতে পাখির ভাষা
আমারে বুঝিতে তবে।

বাদল বিহারী চক্রবর্তী
এসো রিমঝিম দেয়া-বরষায়

জলধির বক্ষ হতে ওঠে আসা
প্রকাণ্ড একেকটি পাষাণখণ্ড সাজ-সাজ রবে
আবিভর্‚ত হলো তাদের স্বাধীন বিচরণভ‚ম-
নিখিল নীলাম্বরে।
আকাশ ছোঁয়ার আকাঙ্খায় আর, না-পারার ব্যর্থতায়
ঈর্ষান্বিত হলেও তাল-তমালেরা আজ উৎফুল্লই।
ওরাও যে প্রতিনিয়ত আকাশে ওড়তে চায়, উঁকি দিয়ে
ওড়তে ওড়তে হারিয়ে যেতে চায়।
দ্যাখো, বাইরে এসো, ক্ষণপরেই শুরু হবে
আরেক অধ্যায়, পাষাণের রুদ্ররূপ। প্রলয়নৃত্যে
ছোট-বড় ভৈরবেরা যখন মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রচণ্ড শব্দে
গর্জে ওঠবে, তখন নেমে আসবে তোমার-আমার
অভিষিক্ত নাওয়ায় কাঙ্খিত প্রক্ষালক, এক--
রিমঝিম দেয়া-বরষা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন