ঢাকা মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

শান্তি ও সমৃদ্ধির পথ ইসলাম

রাসূল (সা.)-এর শানে দরুদ পাঠ একটি স্বতন্ত্র ইবাদত

মাওলানা মুহাম্মাদ আব্দুল মালেক | প্রকাশের সময় : ২৪ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০২ এএম

রাসূলে কারীম (সা.)-কে আল্লাহ তা’আলা অজস্র বৈশিষ্ট্য আর মর্যাদা এবং গুণ ও সৌন্দর্যে ভূষিত করেছেন। তার নাম ও সুনামকে করেছেন সমুন্নত। বলেছেন, আর হে নবী আমি কি আপনার নামকে বুলন্দ করিনি? (সূরা আলাম নাশরাহ : ৪)।

কতভাবে আল্লাহ তাঁর নবীর নামকে বুলন্দ করেছেন এবং কী কী উপায়ে তাঁর মানমর্যাদা বৃদ্ধি করেছেন সে এক দীর্ঘ বহর। তবে সংক্ষিপ্ত কথা এই যে, তার সম্মান বৃদ্ধি ও সুনাম প্রতিষ্ঠার জন্য আল্লাহ নবীর নামকে নিজের নামের সাথে উল্লেখ করেছেন, তার আনুগত্যকে নিজের আনুগত্য আখ্যায়িত করেছেন এবং তার অনুসরণ-অনুকরণকে আল্লাহর মাহবুব ও প্রিয় পাত্র হওয়ার উপায় বলে স্বীকৃতি দিয়েছেন।

ঈমানের কালিমা থেকে আরম্ভ করে নামাযের তাশাহহুদ ও দরুদ, আযানের বাক্যসমূহ থেকে নিয়ে দাফনের দুআ-কালাম, ঊর্ধ্বজগত থেকে নিয়ে পার্থিব জগত এবং রূহের জগতে শপথ গ্রহণের সময় থেকে নিয়ে কবর-হাশর এবং বরযখ ও আখিরাত পর্যন্ত সকল জায়গায়, সব ক্ষেত্রে নবীর নামকে আল্লাহ নিজের নামের সঙ্গে একত্রে উল্লেখ করেছেন।

লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু-এর সঙ্গে মুহাম্মাদুর রাসূলুল্লাহ, ওয়া আশহাদু আল্লা ইলাহা-এর সঙ্গে ওয়া আশহাদু আন্নামুহাম্মাদান আবদুহু ও রাসূলুহু, বিসমিল্লাহ-এর সঙ্গে ওয়া আলা মিল্লাতি রাসূলিল্লাহ, মার রাববুকা-এর সাথে মান হাযার রাজুল .....কে এমনভাবে যুক্ত করা হয়েছে যে, একটি অপরটি থেকে আলাদা হওয়ার কোনোই অবকাশ নেই।

আল্লাহ ও নবীর নাম একত্র উচ্চারণের একটি গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্র হলো সালাত (দরুদ) ও সালাম। প্রত্যেক সালাত ও সালামে আল্লাহর নবীর জন্য প্রার্থনা করা হচ্ছে। এ কারণে সালাত ও সালাম যেমন রাসূলে কারীম (সা.)-এর হক আদায়ের একটি সেরা আমল তেমনি সেটি দুআ ও প্রার্থনার সর্বোত্তম পদ্ধতি হিসেবে অনেক বড় ইবাদত। আর সে কারণেই কোনো ব্যক্তি যদি ওজিফা ও দৈনন্দিন যিকির-আযকারের সবটুকু সময় সালাত ও সালামের আমলে ব্যয় করে তবে সে আল্লাহর ইবাদতে এবং আল্লাহর যিকিরেই মশগুল রয়েছে বলা হবে।

সালাত ও সালাম বা দরুদ শরীফের সৌন্দর্য ও তাৎপর্যের মধ্যে এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ যে, এতে একই সাথে আল্লাহর ইবাদত, রাসূলুল্লাহ (সা.)-এর হক আদায়, উভয়ের প্রতি ভালোবাসায় দৃঢ়তা, ইত্তেবায়ে সুন্নতের তাওফীক, আল্লাহ ও রাসূলের শোকরগোজারি, উভয়ের সন্তুষ্টি অর্জন, হাশরের ময়দানে নবীয়ে কারীমের সুপারিশ লাভ ও নিজের উন্নতি ও মরতবা বৃদ্ধিÑ সবকিছুই নিহিত রয়েছে। এর বেশি আর কী চাই যে, নবীয়ে কারীমের প্রতি সালাত (দরুদ) ও সালামের বদৌলতে স্বয়ং আল্লাহ দরুদ পাঠকারী উম্মতের ওপর সালাত (রহমত) ও সালাম (শান্তি) বর্ষণ করেন!?

সালাত ও সালামের দ্বারা দ্বীন ও ঈমান, দুনিয়া-আখিরাত এবং যাহের ও বাতেনের বহুবিধ কল্যাণ সাধিত হয়। এর মাঝে বহু হেকমত আর রহস্য লুকায়িত আছে। রয়েছে বহু শিক্ষা। সবচেয়ে বড় শিক্ষা এই যে, এতে চিন্তা-ভাবনা করলে মানুষের মাঝে বিনয় ও আল্লাহমুখিতার দৌলত নসীব হয়।

নামাযে পঠিত দরুদ শরীফ তো মাশাআল্লাহ সবার মুখস্থ আছে। এছাড়াও ছোট-বড় বিভিন্ন দরুদ শরীফ হাদিস ও সীরাত গ্রন্থে এবং সালাত ও সালামের ওপর লেখা বই-পুস্তকে পাওয়া যায়। যার জন্য যে দরুদ সহজ মনে হয় যাওক-শাওকের সাথে প্রতিদিন নিয়মিত পড়া উচিত।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (8)
Md Syed Alam ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১:১৫ এএম says : 0
দরুদ শরীফ গুরুত্বপূর্ণ একটি আমল। এ আমলের মাধ্যমে একসঙ্গে আল্লাহ ও তার রাসূলের সন্তুষ্টি পাওয়া যায়। এটি মুমিনের আত্মার খোরাক এবং প্রিয় তাসবিহ
Total Reply(0)
Babu Brri ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১:১৫ এএম says : 0
দিস শরিফে দরুদ পড়ার পদ্ধতি, উপকারিতা, না-পড়ার ক্ষতি সম্পর্কে বিশদ বিবরণ রয়েছে। পবিত্র কোরআনেও এর ব্যাপক তাগিদ রয়েছে।
Total Reply(0)
Babu Brri ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১:১৬ এএম says : 0
মহানবী (সা.) নিজেই বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি আমার ওপর একবার দরুদ পড়ে, আল্লাহতায়ালা তার ওপর দশবার রহমত বর্ষণ করেন। ’ –সহিহ মুসলিম
Total Reply(0)
Khan Ifteakhar ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১:১৬ এএম says : 0
দরুদ শরিফ রাসূলুল্লাহ (সা.)-এর প্রতি ভালোবাসার শ্রেষ্ঠ নিদর্শন। কেউ ঐকান্তিকভাবে এ আমল করলে সে রাসূলুল্লাহ (সা.)-এর ভালোবাসায় সিক্ত হবেই।
Total Reply(0)
Jewel Jewel ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১:১৬ এএম says : 0
হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, ‘যে ব্যক্তি আমার প্রতি দরুদ পড়তে ভুলে গেল সে বেহেশতের পথই ভুলে গেল। ’ -বায়হাকি
Total Reply(0)
Ujjal Khan ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১:১৭ এএম says : 0
বস্তুত, হজরত রাসূলে আকরাম (সা.)-এর মহব্বত অর্জন এবং জীবনের সর্বক্ষেত্রে তার আদর্শ-সুন্নত অনুসরণের যে চেষ্টা-সাধনা ও অনুশীলন-প্রকৃতপক্ষে সেটিই ঈমানের মেহনত।
Total Reply(0)
মোঃ আব্দুস সালাম হাওলাদার ২৪ অক্টোবর, ২০২০, ১০:৪৬ এএম says : 0
রাসূল(সাঃ)এর উপর দুরুদ পাঠ করা ইবাদত।
Total Reply(0)
shaik Shamsur Rahman ২৪ অক্টোবর, ২০২০, ৭:১২ পিএম says : 0
আলহামদুলিল্লাহ দুরুদ শরীফের ফজিলত অনেক বেশী,আগামী ১২ই রবিউল আউয়াল আমদের প্রিয় নবীর (দঃ) জন্ম দিবস,আসুন আমরা সবাই আমদের প্রিয় নবী (দঃ) খুশী করার জন্য আমরা এই দিবস টিকে অত্যান্ত গুরুত্বের সহিত পালন করি।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন