বুধবার , ২৯ মার্চ ২০২৩, ১৫ চৈত্র ১৪২৯, ০৬ রমজান ১৪৪৪ হিজরী

বিনোদন প্রতিদিন

পরলোকে এলভিসের একমাত্র মেয়ে লিসা প্রেসলি

বিনোদন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ জানুয়ারি, ২০২৩, ১০:২৭ এএম

বৃহস্পতিবার লস অ্যাঞ্জেলেসে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন গায়িকা লিসা মেরি প্রেসলি, যিনি ছিলেন এলভিস প্রেসলির একমাত্র কন্যা সন্তান। বাড়িতেই কার্ডিয়াক অ্যারেস্টের শিকার হন তিনি।
গায়িকা লিসা মেরি প্রেসলি, ‘রক এন রোলের রাজা’ এলভিস প্রেসলির একমাত্র কন্যা বৃহস্পতিবার লস অ্যাঞ্জেলেসে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। তার মা প্রিসিলা প্রেসলি একটি বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ‘ভারাক্রান্ত হৃদয়ের সঙ্গে আমাকে এই বেদনাদায়ক সংবাদটি শেয়ার করে নিতে হবে যে আমার সুন্দরী মেয়ে লিসা মেরি আমাদের ছেড়ে চলে গিয়েছে।’
‘আমার দেখা সবচেয়ে আবেগী, শক্তিশালী এবং ভালোবাসায় ভরা মহিলা ছিলেন লিসা। এই গভীর ক্ষতির সঙ্গে মোকাবিলা করার জন্য আপনাদের কাছ থেকে কিছু গোপনীয়তা প্রার্থনা করছি।’, যোগ করা হয়েছে লিসার মায়ের বিবৃতিতে।
লিসা মেরি প্রেসলির মৃত্যুর সময় বয়স হয়েছিল ৫৪ বছর। ক্যালাবাসাসের লস অ্যাঞ্জেলেসের বাড়িতেই কার্ডিয়াক অ্যারেস্টের শিকার হন। তারপর তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল হাসপাতালে।
প্রসঙ্গত, লিসা চলতি সপ্তাহেই বেভারলি হিলস-এ অনুষ্ঠিত গোল্ডেন গ্লোবস অ্যাওয়ার্ডে অংশগ্রহণ করেছিলেন। যেখানে অভিনেতা অস্টিন বাটলার ‘এলভিস’ ছবিতে তাঁর বাবার চরিত্রে অভিনয় করার জন্য সেরা অভিনেতার পুরস্কার জিতেছিলেন। বাটলার সেখানে নিজের বক্তৃতায় লিসা ও তাঁর মা প্রিসিলাকে ধন্যবাদও জানিয়েছিলেন। আরও লিসা মেরি প্রেসলি ১ ফেব্রুয়ারি, ১৯৬৮ সালে মেমফিস, টেনেসিতে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বয়স যখন মাত্র ৯ বছর তখন এলভিস প্রেসলি মারা যান কার্ডিয়াক অ্যারেস্টেই। ২০০৩ সালে অ্যালবাম ‘টু হুম ইট মে কনসার্ন’ দিয়ে নিজের সঙ্গীত জীবন শুরু হয়েছিল। এরপর ২০০৫ সালে এসেছিল ‘নাউ হোয়াট’। আর দুটোই বিলবোর্ড ২০০ অ্যালবাম চার্টের শীর্ষ ১০-এ নিজের জায়গা করে নিয়েছিল। তাঁর তৃতীয় অ্যালবাম, ‘স্টর্ম অ্যান্ড গ্রেস’ ২০১২ সালে প্রকাশিত হয়।
তিনি চারবার বিয়ে করেছিলেন। পপ তারকা মাইকেল জ্যাকসনকে বিয়ে করেন ১৯৯৪ সালে, প্রথম স্বামী সঙ্গীতশিল্পী ড্যানি কিফের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের মাত্র ২০ দিন পর। জ্যাকসনের সঙ্গে ডিভোর্স হয় ১৯৯৬ সালে যখন গায়ক শিশু শ্লীলতাহানির অভিযোগের বিরুদ্ধে লড়ছিলেন।
লিসা ২০০২ সালে তাঁর বাবার একজন বড় ভক্ত অভিনেতা নিকোলাস কেজকে বিয়ে করেন। চার মাস পরেই কেজ বিবাহবিচ্ছেদের আবেদন করেন। চতুর্থ বিয়ে ছিল গিটারিস্ট এবং সঙ্গীত প্রযোজক মাইকেল লকউডের সঙ্গে। যা ভেঙে যায় ২০২১ সালে।
তাঁর চার সন্তান, একমাত্র পুত্র বেঞ্জামিন কেওফ নিজেও একজন সঙ্গীতশিল্পী। ২০২০ সালে মাত্র ২৭ বছর বয়সে মারা যান বেঞ্জামিন। যা পরে আত্মহত্যা হিসেবে ঘোষিত হয়েছিল। মেয়ে রাইলি কিউ-র বয়স ৩৩, পেশায় একজন অভিনেত্রী। তাঁর অন্য দুই কন্যা যমজ কন্যা হার্পার এবং ফিনলে লকউডের বয়স মাত্র ১৪।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন