ঢাকা বুধবার, ২০ জানুয়ারি ২০২১, ০৬ মাঘ ১৪২৭, ০৬ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

ফ্রি কিকের রাজা মেসি

তুষারে ধূসর রিয়াল

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ জানুয়ারি, ২০২১, ১২:০০ এএম

এক নজরে ফল
ওসাসুনা ০-০ রিয়াল মাদ্রিদ
গ্রানাদা ০-৪ বার্সেলোনা
স্পোর্টস ডেস্ক
ফুটবল মাঠ তো নয়, যেন আইস হকির রিঙ্ক। তুষারপাতে পরশু রাতে রিয়াল মাদ্রিদের ম্যাচের আগে ওসাসুনার সবুজ ফুটবল মাঠটা ছিল একেবারে সফেদশুভ্র। হাড়কাঁপানো শীতের মধ্যে সেই মাঠেই লা লিগার ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল দু’দল। ম্যাচ শুরুর আগে তুষার সরানো হলেও বিরতি ছিল না তুষারপাতে। প্রচন্ড ঠান্ডা জয় করে খেললেও পয়েন্ট তালিকার অবনমন অঞ্চলে থাকা ওসাসুনাকে হারাতে পারেনি রিয়াল। গোলশ‚ন্য ড্র হয়েছে ম্যাচটি।
ম্যাচ শেষে প্রচÐ খেপেছেন রিয়াল মাদ্রিদ কোচ জিনেদিন জিদান। পয়েন্ট হারানোর জন্য নয়, ফরাসি কিংবদন্তি খেপেছেন এমন পরিবেশে খেলার জন্য। জিদান মনে করেন, এমন তুষারময় পরিবেশ আর যা–ই হোক ফুটবল খেলার উপযোগী নয়। দ্বিতীয় দফায় রিয়ালের কোচের দায়িত্ব নেওয়া জিদান লা লিগা কর্তৃপক্ষকে একহাত নিয়ে বলেছেন, ম্যাচটি স্থগিত করতে পারত তারা।

তুষারপাতের কারণেই নির্ধারিত সময়ের এক দিন আগেই পাম্পলোনায় রওনা দিতে হয় রিয়ালকে। লা লিগার বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা অবশ্য মাদ্রিদের বিমানবন্দরেই আটকে ছিলেন চার ঘণ্টা। রাতে ম্যাচের পুরোটা সময়েই ঝরেছে তুষার। এমন পরিবেশে খেলা কতটা কঠিন, সেটি পরিষ্কার একটি তথ্যেই-পুরো প্রথমার্ধে ওসাসুনার গোলে একটি শটও নিতে পারেনি জিদানের দল। দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য দুবার ওসাসুনার জালে বল পাঠিয়েও গোলের দেখা পায়নি রিয়াল। দু’বারই করিম বেনজেমার গোল বাতিল হয়েছে অফসাইডের কারণে। ম্যাচটি জিতলে নগর প্রতিদ্ব›দ্বী অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে ছাড়িয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে ওঠার সুযোগ ছিল রিয়ালের। কেননা এই তুষারঝড়ের কারণে একই রাতে বাতিল হয়ে যায় অ্যাটলেটিকো ও বিলবাওয়ের ম্যাচ। কিন্তু ড্র করায় লুইস সুয়ারেজদের চেয়ে তিন ম্যাচ বেশি খেলেও ১ পয়েন্ট পিছিয়ে ১৮ ম্যাচে ৩৭ পয়েন্ট পাওয়া রিয়াল।

একই রাতে লিগের আরেক ম্যাচে বার্সেলোনার জার্সি গায়ে এদিন নিজের ৬০০তম ম্যাচটি খেলতে নামেন সার্জিও বুস্কেটস। সব ধরনের প্রতিযোগীতা মিলে স্প্যানিশ ক্লাবটির জার্সি গায়ে তার চেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার রেকর্ড আছে কেবল আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা (৬৭৪), লিওনেল মেসি (৭৫২) ও জভি হার্নান্দেস (৭৬৭)। এমন রাতটি বৃথা যেতে দেয়নি রোনাল্ড কোমানের দল। গ্রানাদাকে ৪-০ গোলে হারিয়েছে কাতালান জায়ান্টরা। তবে ম্যাচটি ছিল মেসিময়। টানা দুই ম্যাচে জোড়া গোল। লিওনেল মেসি হাসছেন, হাসছে বার্সেলোনাও। মৌসুমের শুরুতে খেই হারিয়ে ফেলা বার্সেলোনার ফর্মেরও উন্নতি হয়েছে তাতে। টানা দ্বিতীয় ম্যাচে মেসির জোড়া গোল। বাকি দুই গোল ফরাসি স্ট্রাইকার আতোয়ান গ্রিজমানের।

মেসির দুই গোলের একটি আবার এসেছে দর্শনীয় এক ফ্রি কিক থেকে। আর এই ফ্রি কিক গোলের মাধ্যমেই প্রতিষ্ঠিত হয়ে গেছে ক্লাব ফুটবলে চিরপ্রতিদ্ব›দ্বী ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো নন, বরং লিওনেল মেসিই রাজা। নিজের ক্লাব ক্যারিয়ারে স্পোর্তিং লিসবন, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, রিয়াল মাদ্রিদ ও জুভেন্টাসের হয়ে খেলা পর্তুগিজ রাজপুত্র ফ্রি কিকে গোল করেছেন ৪৭টি। ওদিকে গোটা ক্যারিয়ারটাই বার্সায় কাটিয়ে দেওয়া লিওনেল মেসি এদিন করলেন নিজের ৪৮তম ফ্রি কিক গোল। এর মধ্যে ৩৬টিই এসেছে লা লিগায়। অর্থাৎ প্রতি ১৫.৭ ম্যাচ অন্তর অন্তর একটা করে ফ্রি কিকে গোল করেছেন মেসি। রোনালদোর ক্ষেত্রে যে হারটা ১৮.৮।

‘হয়তো দুজন গোলরক্ষক থাকলেও লিও মেসির এই ফ্রি কিকটা আটকানো যেত না। তিনি আবারও দেখাচ্ছেন, তিনি কী জিনিস। বর্তমানে স্প্যানিশ লা লিগার সর্বোচ্চ গোলদাতাকে পরিচয় করিয়ে দিই আপনাদের সঙ্গে, তিনি আর কেউ নন, লিওনেল মেসি। কিছু জিনিস কখনোই বদলায় না’- ফ্রি কিক গোলের পর ধারাভাষ্যকারের এমন উল্লাসই প্রমাণ, গোলটা কতটা দৃষ্টিনন্দন ছিল! আর এই গোলের মাধ্যমেই চলতি লিগে এ পর্যন্ত ১১টি গোল হয়ে গেল আর্জেন্টাইন তারকার। এর চেয়ে বেশি গোল এখনো কেউ করেননি। আরেকটি পিচিচি ট্রফি জয়ের দিকে আরেক ধাপ এগিয়ে গেলেন আর্জেন্টাইন জাদুকর।

তবে জাতীয় দলের রেকর্ডসহ বিবেচনা করলে দুজনের মধ্যে ফ্রি কিকের রাজা এখনো রোনালদোই। ক্লাব ও জাতীয় দল মিলিয়ে ফ্রি কিকে রোনালদোর গোল ৫৬টি। তবে কিছুদিনের মধ্যে হয়তো এ রেকর্ডটাও মেসি কেড়ে নেবেন, তার গোল যে মাত্র দুটি কম! এই ম্যাচ জিতে রিয়ালের সমান ম্যাচে ৩৪ পয়েন্ট নিয়ে আছে তিন নম্বরে বার্সা। সমান ম্যাচে ৩২ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে ভিয়ারিয়াল।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন