ঢাকা রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫ আশ্বিন ১৪২৭, ০২ সফর ১৪৪২ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

আবারো অবৈধ ইটভাটা

মো. হাসিবুল ইসলাম হাসান, পিরোজপুর থেকে | প্রকাশের সময় : ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০২ এএম

পিরোজপুর সদর উপজেলার শারিকতলা ডুমরিতলা ইউনিয়নের পূর্ব হরিণা গ্রামে থাকা একটি ইটভাটাকে জরিমানা করা হয়েছিল ২০ লাখ টাকা। জরিমানার টাকা দিতে না পারায় ভাটার ম্যানেজার সাজা খাটছেন। তারপরেও আবার প্রশাসনকে বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে ইট পোড়ানো শুরু করছে এএফএ ব্রিকস্ এর মালিক।
জানা যায়, পরিবেশ অধিদফতর ২০১৯ সালের ২৫ ডিসেম্বর পিরোজপুর সদর উপজেলার পূর্ব হরিনা গ্রামে নজরুল ইসলাম মনিরের মালিকানাধীন এএফএ ইটভাটায় অভিযান চালায়। এসময় পরিবেশ অধিদফতরের কর্মকর্তারা অভিযানে ভেকু মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে তৈরি করা ইটভাটাটি ভেঙে দেয়।
এসময় ইট প্রস্তুত করার অপরাধে ইটভাটার ম্যানেজার পিরোজপুর সদর উপজেলার দক্ষিণ রাণীপুর গ্রামের ইমাম হোসেনের ছেলে সোয়াইব হোসেনকে আটক করে। এরপর ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে সোয়াইব হোসেনকে ইট পোড়ানো ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন ২০১৩ (সংশোধিত ২০১৯) এর ৪ ধারা অনুযায়ী ২০ লাখ টাকা জরিমানা অথবা ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করে। সোয়াইব হোসেন বর্তমানে জেলা কারাগারে আছেন। এর পরেও ভাটাটির কার্যক্রম আবার শুরু হয়েছে।
তবে এ এফ এ ব্রিকস্ ফিল্ডে গিয়ে দেখা গেছে, ভেঙে দেয়া চুল্লিটি নতুন করে তৈরি করা হয়েছে। পাশেই করাত কল স্থাপন করে কাটা হচ্ছে গাছ। এছাড়া ইটও তৈরি করে শুরু করা হয়েছে ইট পোড়ানো।
পিরোজপুর সদর উপজেলার শারিকতলা-ডুমরিতলা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. জাহিদুল ইসলাম মিরাজ জানান, পরিবেশ অধিদফতরের কর্মকর্তারা এ এফ ব্রিকস্ এ গত বছরের ডিসেম্বরে অভিযান চালিয়ে ভাটাটি বন্ধ করে দেয়া হয় এবং তখন ২০ লাখ টাকা জরিমানা করে। জরিমানার টাকা দিতে না পারায় ভাটার ম্যানেজার সোয়াইব হোসেনকে আটক করে কারাগারে প্রেরণ করা হয়। বর্তমানে ইটভাটার মালিক নজরুল ইসলাম মনির তার ইটভাটার কার্যক্রম শুরু করেছেন। কিভাবে করলেন, তা তিনি জানেন না বলে জানান।
ইটভাটার মালিক নজরুল ইসলাম মনিরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, পরিবেশ অধিদফতরের কাছ থেকে মৌখিক অনুমোদন পাওয়া গেছে, সে কারণে তিনি ইটপোড়ানোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন। চুড়ান্ত অনুমোদন পেলে ইট পোড়ানো শুরু হবে। তিনি আরও বলেন, অত্র এলাকায় তার মতো আরো কয়েকটি ইটভাটা রয়েছে। তারা যেভাবে ইট পোড়ানোর কাজ করছে তিনিও সেভাবে করবেন। ভাটার মালিক বলেন, সোয়াইব হোসেন তার ভাটার ম্যানেজার। অভিযানকালে পরিবেশ অধিদফতরের কর্মকর্তারা সোয়াইব হোসেনকে আটক করে। সে এখন কারাগারে সাজা ভোগ করছে।
পরিবেশ অধিদফতর বরিশাল র্কাযালয়ের পরিচালক ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আ. হালিম জানান, ভাটা চালানোর জন্য এ এফ এ. ব্রিকসকে কোনো রকম মৌখিক অনুমতি দেয়া হয়নি। অবৈধভাবে ভাটা চালানোর জন্য গত বছরের শেষের দিকে এ এফ এ ব্রিকস্ ও আরো একটি ইটভাটায় অভিযান চালিয়ে সেগুলো বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল। এসময় এ এফ এ ব্রিকস্কে ২০ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১ বছর বিনাশ্রম কারাদন্ড দেয়া হয়েছিল।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন