মঙ্গলবার ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১১ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

ইসলামী প্রশ্নোত্তর

মসজিদ জামে মসজিদ হওয়া প্রসঙ্গে।

মো. হাবিবুল্লাহ
ইমেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ১৭ জুলাই, ২০২২, ৭:২৪ পিএম

প্রশ্নের বিবরণ : আমি আমার বাসার পাশে একটি হাউজিং সোসাইটি জামে মসজিদে জামাতে নামাজ আদায় করি। (আমার বাসা মসজিদের পাশে হাউজিং সোসাইটির গেটের বাইরে, মসজিদের উন্নয়নে আমি শরীক থাকি) এক দিন মসজিদের সেক্রেটারি বললেন, ভাই কিছু মনে করবেন না, আমি হাউজিং সোসাইটির সদস্যদের চাপে আছি, আপনি তো হাউজিং সোসাইটির বাইরের মুসল্লি, আমাদের মসজিদে আসবেন না। ইমাম সাহেবের নিকট প্রশ্ন করলাম, হুজুর জামে মসজিদের মাসআলা কি? এই জামে মসজিদ কি শুধু নির্দিষ্ট মুসল্লির জন্য? ইমাম সাহেব বললেন বঙ্গভবনে, ঈধহঃড়হসবহঃ এ, গণ ভবনের মসজিদের কি নামাজ হয় না? অনুগ্রহ করে সঠিক উত্তর দিলে উপকৃত হব।


উত্তর : নিরাপত্তা ও শৃংখলার জন্য কোনো এলাকায় বহিরাগতদের আসা যাওয়া নিয়ন্ত্রন করার অধিকার কর্তৃপক্ষের রয়েছে। এমন বিশেষ জায়গায় কেবল নিজেদের মধ্যে জুমার নামাজ সহীহ হয়। তবে, বিশেষ জায়গা বলতে যে কেউ তা নির্ধারণ করতে পারে না। এজন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষ প্রয়োজন। আপনার প্রশ্নে বর্ণিত মসজিদে কেবল হাউজিংয়ের ভেতরকার মুসল্লীদের নামাজ হতে পারে। আপনি বা অন্যরা সবার জন্য উন্মুক্ত এমন মসজিদে জুমা পড়বেন। সবাইকে আসতে না দিলেই জুমা হবে না, এমনটি সবক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়। তবে, বর্ণিত হাউজিং সমিতির কর্তব্য অন্তত জুমার দিন সব মুসল্লীদের জুমায় শরীক হতে দেওয়া। নিতান্তই কোনো যৌক্তিক কারণ না থাকলে জুমার নামাজে বহিরাগতদের বাধা দেওয়া ঠিক নয়।
উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী
সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতওয়া বিশ্বকোষ।
প্রশ্ন পাঠাতে নিচের ইমেইল ব্যবহার করুন।
inqilabqna@gmail.com

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন